লাভ-ক্ষতির ম্যাথের সাথে ডিসকাউন্টের কিছু ম্যাথ

প্রস্তুতি

Total Views: 951

গণিত প্রস্তুতি

1] Cost : একটা দ্রব্য অর্জন করতে একজন ব্যবসায়ী (অথবা ব্যক্তিকে) যে মূল্য দিতে হয়েছে,

ঐ মূল্যই হল, ঐ দ্রব্যের Cost বা ক্রয়মূল্য। যেমন, ক একটি দ্রব্য ৫ টাকায় ক্রয় করে খ এর নিকট দ্রব্যটি ৬ টাকায় বিক্রয় করে। খ ঐ দ্রব্যটি গ এর নিকট ৪ টাকায় বিক্রয় করে। এখানে, ক এর নিকট দ্রব্যটির Cost হচ্ছে ৫ টাকা, খ এর নিকট ৬ টাকা, গ এর নিকট ৪ টাকা।

 

2]‘Marked-Up’/’Tagged’/’Written-down’/’Asking’/ ’Listed’ Price : পন্য ক্রয়ের পরে ঐ পন্যটি যখন বিক্রেতা বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে ক্রেতাসাধারণের সামনে উপস্থাপন করে, তখন ঐ পন্যের মূল্যটিও উল্লেখ করে দেয়। এই মূল্যই হল ‘Marked-Up’/’Tagged’/’Written-down’/’Asking’ /’Listed’ Price বা অভিহিত মূল্য। যেমন, আপনি একটি পোশাকের দোকানে গিয়ে দেখলেন, প্রচুর সংখ্যক পোশাক সাজানো আছে এবং প্রতিটি পোশাকের সাথে একটি ট্যাগে ঐ পোশাকের মূল্য লিখে দেয়া আছে। এই মূল্যটিই ‘Marked-Up’/’Tagged’/’Written-down’/’Asking’/’Listed’ Price.

 

3] Discount : পণ্যের ‘Marked-Up’/’Tagged’/’Written-down’/’Asking’/’Listed’ মূল্য থেকে বিক্রেতা পন্যটি বিক্রয়ের সময় ক্রেতাকে যে মূল্য ছাড় দেয়, তাকে ডিসকাউন্ট বলে। ডিসকাউন্ট হতে পারে একটি নির্দিষ্ট অংকের, আবার তা হতে পারে একটি নির্দিষ্ট হারের। কিছু পণ্যের ক্ষেত্রে সরাসরি ডিসকাউন্টের টাকার অংক উল্লেখ করা থাকে, যেমন – “৪০০ মি.লি. প্যারাসুট নারিকেল তেলে এখন ১০ টাকা ছাড়”। এক্ষেত্রে, ঐ পণ্যের অভিহিত মূল্য এই ডিসকাউন্ট ঘোষনার পূর্বে যত ছিল, তা থেকে ১০ টাকা বিয়োগ করে পণ্যের বিক্রয়মূল্য নির্ধারন করা হয়। নির্দিষ্ট হারের ডিসকাউন্টের ক্ষেত্রে বিক্রেতা একটি নির্দিষ্ট হার উল্লেখ করে দেয়, যেমন – “বাটা’র যেকোনো জুতোর মূল্যে এখন ৩০% ছাড়”। এক্ষেত্রে, আপনি, বাটা থেকে যে মূল্যের জুতোই কেনেন না কেন, ‘Marked-Up’/’Tagged’/’Written-down’/’Asking’/’Listed’ মূল্য থেকে ৩০% বাদ দিয়ে বাকী টাকাটা আপনাকে পরিশোধ করতে হবে।

Android App: Job Circular

4] Discounted Price : অভিহিত মূল্য থেকে ডিসকাউন্টের অংশটুকু বাদ দিয়ে যে মূল্যে পণ্যটি বিক্রয় করা হয়, তাকে Discounted Price বা Actual Selling Price বলা হয়ে থাকে। এই Selling Price এর মধ্যে স্বভাবতই দুটি অংশ থাকে যথা : [ক্রয়মূল্য বা cost] ± [লাভ/ক্ষতি (profit/loss)].

 

5] Profit/Loss : একটি পণ্যকে তার cost বা ক্রয়মূল্য অপেক্ষা যত বেশি মূল্যে বিক্রি করা হয়, ঐ অতিরিক্ত মূল্যটুকুই হচ্ছে লাভ বা Profit. যেমন, ২০ টাকা মূল্যের একটি দ্রব্য যদি ২৩ টাকায় বিক্রি করা হয় তবে লাভ হবে ২৩-২০ = ৩ টাকা। লাভের হার = (৩*১০০/২০) = ১৫%। অন্যদিকে, একটি পণ্যকে তার cost বা ক্রয়মূল্য অপেক্ষা যত কম মূল্যে বিক্রি করা হয়, ক্রয়মূল্য থেকে ঐ মূল্যের পার্থক্যের অংশটুকুই হচ্ছে ক্ষতি বা Loss. যেমন, ২০ টাকা মূল্যের একটি দ্রব্য যদি ১২ টাকায় বিক্রয় করা হয়, তবে ক্ষতি হবে ২০-১২ = ৮ টাকা। ক্ষতির হার = (৮*১০০/২০) = ৪০%।

 

মনে রাখবেন:

 

ক। অন্য কিছু উল্লেখ না থাকলে, ক্রয়মূল্যের ওপরেই সর্বদা লাভ ক্ষতির হার এপ্লাই করে লাভ বা ক্ষতির পরিমান নির্ণয় করা হয়।

 

খ। অভিহিত মূল্য (‘Marked-Up’/’Tagged’/’Written-down’/’Asking’/’Listed’ Price) -এর ওপরেই সর্বদা ডিসকাউন্ট রেট এপ্লাই করা হয়।

 

গ। ‘১০% ডিসকাউন্টে বিক্রয়’ কথাটা একটু ঘুরিয়ে বলতে চাইলে বলা যায় ‘অভিহিত মূল্যের ৯০% মূল্যে বিক্রয়’।

 

ঘ। ‘১০% লাভে বিক্রয়’ কথাটা একটু ঘুরিয়ে বলা যায় ‘ক্রয়মূল্যের ১১০% মূল্যে বিক্রয়’। আবার, ‘১০% ক্ষতিতে বিক্রয়’ কথাটা অন্যভাবে বলা যায় ‘ক্রয়মূল্যের ৯০% মূল্যে বিক্রয়’।

 

কিছু উদাহরণ:

 

ক) একটি পণ্য ১০% লাভে ১৪৩ টাকায় বিক্রয় করা হলে পণ্যটির ক্রয়মূল্য কত?

 

সমাধান:

 

ক্রয়মূল্যের ১১০% = ১৪৩ টাকা

 

ক্রয়মূল্যের ১০০% = ১৪৩*১০০/১১০ = ১৩০ টাকা।

 

খ) একটি পণ্য ১০% ক্ষতিতে ১১৭ টাকায় বিক্রয় করা হলে পণ্যটির ক্রয়মূল্য কত?

 

সমাধান:

 

ক্রয়মূল্যের ৯০% = ১১৭ টাকা

 

ক্রয়মূল্যের ১০০% = ১১৭*১০০/৯০ = ১৩০ টাকা্

 

গ) একটি পণ্য ১০% ডিসকাউন্টে ১২৬ টাকায় বিক্রয় করা হলে পণ্যটির অভিহিত মূল্য কত?

 

সমাধান:

 

অভিহিত মূল্যের ৯০% = ১২৬ টাকা

 

অভিহিত মূল্যের ১০০% = ১২৬*১০০/৯০ = ১৪০ টাকা।

 

ঘ) একটি পণ্য ১০% ডিসকাউন্টে বিক্রয় করায় ১৭% লাভ হয়। পণ্যটি কোনো ডিসকাউন্ট ছাড়া বিক্রয় করলে কত শতাংশ লাভ হতো?

 

সমাধান:

 

অভিহিত মূল্যের ৯০% = ক্রয়মূল্যের ১১৭%

 

অভিহিত মূল্যের ১০০% = ক্রয়মূল্যের (১১৭*১০০/৯০)% বা ১৩০%।

 

ইতোমধ্যেই জেনেছি ক্রয়মূল্যের ১৩০% মূল্যে বিক্রয় মানে হল ক্রয়ের ওপরে ৩০% লাভে বিক্রয়।

 

ঙ) একটি পণ্য ১০% ডিসকাউন্টে বিক্রয় করায় ২৬% লাভ হয়। পণ্যটি ২০% ডিসকাউন্টে বিক্রয় করলে কত শতাংশ লাভ হবে?

 

সমাধান:

 

অভিহিত মূল্যের ৯০% = ক্রয়মূল্যের ১২৬%

 

অভিহিত মূল্যের ৮০% = ক্রয়মূল্যের (১২৬*৮০/৯০)% বা ১১২%।

 

ক্রয়মূল্যের ১১২% মূল্যে বিক্রয়ের মানে হচ্ছে ১২% লাভে বিক্রয়।

আবেদনের শেষ তারিখঃ na

লোকেশনঃ বাংলাদেশ

Source: online