বাংলা গ্রামার (মেগা পোস্ট)-বাংলা ২য় পত্র:(নবম-দশম) বইয়ের উপর ভিত্তি করে তৈরি।।

প্রস্তুতি

Total Views: 977

অবশ্যই বিগত সকল নিয়োগ পরীক্ষাসমূহের প্রশ্নোত্তর ভিত্তিক।
। আশা করি তিনটি ধাপে(এটি ১ম ধাপ)বাংলা ব্যাকরণ অংশের সম্পূর্ণ সিলেবাস কভার করবে। বিসিএস, নিবন্ধন এবং ব্যাংকসহ সকল সিলেবাস।।এটি তিন ধাপে সবমিলিয়ে #১০টি পার্টে বিভক্ত করেছি। আজকের ১ম ধাপে রয়েছে #৪টি পার্ট। সম্পূর্ণ বই এর চুম্বক অংশ।। কিছু টপিকের ক্ষেত্রে বেশি সংক্ষিপ্ত।। কিছু আছে প্রয়োজন মত, এটা কারো কাছে বিস্তারিত মনে হতে পারে।। এগুলো আমি বসে বসে লিখি নি। তবে বসে বসে সবগুলো ভেরিফাই করেছি এবং যেখানে ভুল পেয়েছি, সেখানে সংশোধন করেছি। কিছু ক্ষেত্রে নিজের ভাষা ব্যবহার করেছি এবং নিজের মত করে এডিট করেছি এক্ষেত্রে আমি সর্বাগ্রে বোর্ড বই (৯-১০) কে প্রাধান্য দিয়েছি। বোর্ড বইয়ে সমাধান না পেলে প্রচলিত গাইড বইগুলির আশ্রয় নিয়েছি। কষ্ট করে আমার জন্য তৈরি করেছি, চলার পথে পড়ার জন্য। বাসায় বসে মোবাইলে পড়াটা নিতান্তই স্টাডির সাথে বেয়াদবি। ভাবলাম কষ্টটা শেয়ার করে ফেলি সবার সাথে।
************************-
ধাপ:০১ (পার্ট:১)
★ শব্দ★
এই পার্টটা আমরা প্রশ্নোত্তরের মাধ্যমে শিখতে পারি। কারন এটি সামগ্রিকভাবে পড়তে গেলে সব সময় আনন্দদায়ক হবে না। নিজেরা বই খুলে পড়ে নিবেন।
প্রশ্নঃ কোনগুলো তদ্ভব শব্দ? ক. আকাশ, বাতাস, চাঁদ খ. আধ, মাছ, তামা গ. ডাক, বুক, পেট ঘ. লুঙ্গি, লিচু, পাতা উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ 'পাঞ্জেরী' কোন ভাষার শব্দ? ক. হিন্দি খ. ফারসি গ. বাংলা ঘ. আরবি উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ ভাষার একক হলো-- ক. ধ্বনি খ. বাক্য গ. বর্ণ ঘ. শব্দ উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ ‘পেয়ারা’ কোন ভাষা থেকে আগত শব্দ ক. হিন্দি খ. উর্দু গ. পর্তুগিজ ঘ. গ্রিস উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ ‘শাকসবজি’ শব্দটি নিম্নের কোন্ দুইয়ের মিলন? ক. তৎসম+ফারসি খ. তদ্ভব+ফারসি গ. পর্তুগীজ+আরবি ঘ. কোনটি না উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ বোতাম,বালতি, আনারস ও চাবি শব্দগুলো কোন ভাষা থেকে এসেছে? ক. পর্তুগিজ খ. ফারসি গ. চৈনিক ঘ. খাঁটি বাংলা ঙ. আরবি উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ পুর্তগীজ ভাষার শব্দ নয় কোনটি? ক. আনারস খ. আলমারি গ. গুদাম ঘ. চাহিদা উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ অর্থবোধক ধ্বনিকে বলা হয়- ক. বাক্য খ. উপসর্গ গ. শব্দ ঘ. প্রত্যয় উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ নিম্নের কোনটি তৎসম শব্দ? ক. দধি খ. মুড়ি গ. আম ঘ. কলম উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ 'পঙ্কজ' কোন ধরনের শব্দ? ক. যোগরূঢ় খ. খাঁটি বাংলা গ. যৌগিক ঘ. মিশ্র উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ ‘পাখি’ কোন ধরনের শব্দ? ক. অপভ্রংশ খ. তদ্ভব গ. বিদেশী ঘ. সংস্কৃত উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ বাংলা ভাষায় ব্যবহৃত যতিচিহ্নগুলোর কতটি বাক্যের শেষে বসে? ক. ১ খ. ২ গ. ৩ ঘ. ৪ উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ ‘কুর্নিশ’ কোন ভাষার শব্দ? ক. হিন্দি খ. তুর্কি গ. আরবি ঘ. ফারসি উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ ‘হরতাল’ শব্দটি কোন ভাষার? ক. ওলন্দাজ খ. তুর্কি গ. হিন্দি ঘ. গুজরাটি উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ কোন ভাষারীতির পদবিন্যাস সুনিয়ন্ত্রিত ও সুনির্দিষ্ট? ক. চলিত ভাষা খ. কথ্য ভাষা গ. লেখ্য ভাষা ঘ. সাধু ভাষা উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ কোনটি বিদেশী শব্দ নয়? ক. দাদা খ. ঢেঁকি গ. আনারস ঘ. বাবুর্চি উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ চন্দ্র কোন ভাষার উদাহরণ? ক. দেশী খ. বিদেশী গ. তদ্ভব ঘ. তৎসম উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ নিচের কোনটি সাধুরীতির উদাহরণ? ক. তখন গভীর ছায়া নেমে আসে সর্বত্র খ. তখন গভীর ছায়া নামিয়া আসিল সবখানে গ. তখন গভীর ছায়া নামিয়া আসে সর্বত্র ঘ. তখন গভীর ছায়ায় সর্বত্র ঢেকে গিয়াছে উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ কোনটি তৎসম শব্দ? ক. কলম খ. ফুল গ. বাড়ি ঘ. চন্দন উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ জানাজা শব্দটি— ক. বিদেশী খ. দেশী গ. তদ্ভব ঘ. তৎসম উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ বাংলা ভাষা এই শব্দ দুটি গ্রহণ করেছে চীনা ভাষা হতে- ক. চাকু, চাকর খ. খদ্দর, হরতাল গ. চা, চিনি ঘ. রিক্সা, রেস্তোঁরা উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ ‘গিন্নী’ কোন শ্রেণীর শব্দ? ক. তৎসম খ. অর্ধ-তৎসম গ. বিদেশী ঘ. তদ্ভব উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ ইলেক বা লোপ চিহ্ন দিতে হয়? ক. বিলুপ্ত বর্ণের জন্য খ. প্রত্যক্ষ উক্তির জন্য গ. উদ্ধরণ চিহ্নের জন্য ঘ. সমাসবদ্ধ পদের জন্য উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ কোনটি দেশী শব্দ নয়? ক. মই খ. চিড়া গ. ঢেঁকি ঘ. ধুতি উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ 'রেনাসাঁস' কোন ভাষা থেকে শব্দ? ক. ইংরেজি খ. পর্তুগিজ গ. ফরাসি ঘ. ফারসি উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ নিচের কোনটি তৎসম শব্দ নয় ? ক. হারাম খ. চন্দ্র গ. নক্ষত্র ঘ. সূর্য উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ 'মুসলমান' শব্দটি-- ক. উর্দু খ. ফারসি গ. ফরাসি ঘ. আরবি উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ নিচের কোনটি তুর্কি ভাষা থেকে আগত? ক. সাবান খ. ক্রোক গ. পেরেক ঘ. কোনটিই নয় উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ 'বাংলা' কোন ভাষা পরিবারের অন্তর্ভুক্ত? ক. ইন্দো-আর্য খ. তিব্বতী-বার্মিজ গ. দ্রাবিড় ঘ. অস্ট্রো এশিয়াটিক উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ কোনগুলো দেশী শব্দ? ক. টেবিল, চেয়ার খ. লুঙ্গি, ফুঙ্গি গ. চাল, চুলা ঘ. চা, চিনি উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ 'উদ্ধৃতি চিহ্ন' কত প্রকার? ক. দুই প্রকার খ. তিন প্রকার গ. চার প্রকার ঘ. পাঁচ প্রকার উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ বাক্যে "কমা" অপেক্ষা বেশি বিরতির প্রয়োজন কি বসে? ক. সেমিকোলন খ. কোলন গ. ঙ্কোলন ড্যাস ঘ. হাইফেন উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ 'ইংরেজি' কোন ভাষার শব্দ? ক. জার্মান খ. ইতালীয় গ. ইংরেজি ঘ. পর্তুগিজ উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ সম্বোধন পদে কোন যতিচিহ্ন বসে?
ক. কমা
খ. ড্যাশ
গ. সেমিকোলন
ঘ. হাইফেন
উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ নিচের কোন শব্দটি যোগরূঢ় শব্দ?
ক. নিরক্ষর
খ. পিপাসা
গ. জলদ
ঘ. নির্মম উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ বাংলা ভাষার পূর্ববর্তী স্তর-- ক. মহারাষ্ট্রী প্রাকৃত খ. শৌরসেনী প্রাকৃত গ. মাগধী প্রাকৃত ঘ. পৈশাচী প্রাকৃত উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ ‘পার হইয়া’- এই ক্রিয়া পদের সাধু রূপটি চলিত রূপে রূপান্তরিত করলে কি হবে? ক. পার হয়ে খ. পারায়ে গ. পেরিয়ে ঘ. পার হইয়ে উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ কোনটি ইংরেজি শব্দ? ক. ম্যাজেন্টা খ. পিস্তল গ. আলমারি ঘ. কমা উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ ‘জানালা’ শব্দটি- ক. ফারসি খ. পর্তুগিজ গ. হিব্রু ঘ. তুর্কি উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ 'ধূম্র' শব্দটি কোন শ্রেণীভুক্ত? ক. তৎসম খ. তদ্ভব গ. দেশী ঘ. অর্ধ-তৎসম উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ করেছে, করেছেন, করেছো- একই শব্দের এ তিনটি রূপ কি কারণে ব্যবহৃত হয়? ক. সমাস খ. কারক বিভক্তি গ. মর্যাদাভেদে ঘ. লিঙ্গভেদে উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ ‘চৌ-হদ্দি’ শব্দটি কোন কোন ভাষার শব্দ মিলে রয়েছে? ক. বাংলা+ফারসি খ. সংস্কৃত+ফারসি গ. ফারসি+আরবি ঘ. সংস্কৃত+আরবি উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ সাধুরীতির শব্দ কোনটি? ক. কেতাব খ. কলেজ গ. গিন্নী ঘ. গ্রহ উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস প্রথম বছরে কয়টি দেশ পালন করেছে ? ক. ১৭৬ খ. ১৭৮ গ. ১৮৮ ঘ. ১৯০ উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ 'বারান্দা' কোন ভাষা থেকে আগত? ক. ইংরেজি খ. তুর্কি গ. ওলন্দাজ ঘ. ফারসি উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ 'বালতি' শব্দটি কোন ভাষা থেকে আগত? ক. উর্দু খ. পর্তুগিজ গ. আরবি ঘ. ইংরেজি উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ কোনটি তদ্ভব শব্দ? ক. চাঁদ খ. সূর্য গ. নক্ষত্র ঘ. গগণ উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ ‘লাপাত্তা; শব্দের ‘লা’ উপসর্গটা বাংলা ভাষায় এসেছে- ক. আরবী ভাষা থেকে খ. ফরাসী ভাষা থেকে গ. হিন্দী ভাষা থেকে ঘ. উর্দু ভাষা থেকে উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ নিচের কোনটি পর্তুগিজ শব্দ? ক. গুদাম খ. কুপন গ. চাহিদা ঘ. চাকর ঙ. কোনটিই নয় উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ ভাষার কোন রীতি নাটকের সংলাপে ও বক্তৃতার উপযোগী? ক. আঞ্চলিক রীতি খ. সাধু রীতি গ. চলিত রীতি ঘ. লেখ্য রীতি উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ দাপ্তরিক কোন শব্দটি ইংরেজি ভাষা থেকে আগত? ক. আইন খ. দাখিল গ. এজেন্ট ঘ. মুচলেকা উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ বাংলা ভাষায় চলিত রীতি প্রবর্তনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছেন কে? ক. রাম রাম বসু খ. প্রমথ চৌধুরী গ. ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর ঘ. রাজা রামমোহন রায় উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ বাংলা গদ্যের প্রথম যুগে কোন রীতির প্রচলন ছিল? ক. সাধুরীতি খ. চলিতরীতি গ. কথ্যরীতি ঘ. মিশ্ররীতি উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ প্রমথ চৌধুরী কোন বিষয়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে প্রভাবিত করেছিলেন? ক. চলিত ভাষার ব্যবহারে খ. গদ্য কবিতা রচনায় গ. সাহিত্যে মুসলিম চরিত্র সৃষ্টিতে ঘ. উপন্যাসে ইতিহাস বর্জনে উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ কোনটি তদ্ভব শব্দ? ক. নেংটি খ. নিমন্ত্রণ গ. গতর ঘ. হাত উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ চাঁদ + মুখ কোন ধরনের শব্দ? ক. যৌগিক শব্দ খ. যোগরূঢ় শব্দ গ. সাধিত শব্দ ঘ. মৌলিক শব্দ উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ কোন শাসনামলে বাংলা লিপির স্থায়ী রূপ তৈরি করে অক্ষর গঠনের কাজ শুরু হয়? ক. পাল আমলে খ. পাঠান আমলে গ. গুপ্ত আমলে ঘ. সেন আমলে উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ ‘হাটবাজার’ কোন কোন ভাষার শব্দ নিয়ে গঠিত? ক. আরবি ও ফারসি খ. বাংলা ও ফারসি গ. আরবি ও বাংলা ঘ. বাংলা ও পর্তুগিজ উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ শব্দের অর্থযুক্ত ক্ষুদ্রাংশকে বলা হয়? ক. অর্থ খ. শব্দাংশ গ. বাক্য ঘ. রূপ উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ যেসব শব্দ সংস্কৃত ভাষা থেকে সোজাসুজি বাংলায় এসেছে এবং যাদের রূপ অপরিবর্তিত রয়েছে, সেসব শব্দকে কি বলা হয় ? ক. তৎসম শব্দ খ. অর্ধতৎসম শব্দ গ. বিদেশী শব্দ ঘ. দেশী শব্দ উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ যৌগিক শব্দ কোনটি? ক. গায়ক খ. প্রবীণ গ. তৈল ঘ. জলধি উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ রিকশা শব্দটি কোন ভাষা থেকে এসেছে? ক. পর্তুগিজ খ. ওলন্দাজ গ. জাপানি ঘ. ফরাসি উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ কোন ভাষা থেকে বাংলা ভাষার উদ্ভব হয়েছে বলে ড.মুহম্মদ শহীদুল্লাহ মনে করেন? ক. গৌড়ীয় অপভ্রংশ খ. গৌড় অপভ্রংশ গ. মাগধী অপভ্রংশ ঘ. প্রাচীন অবহট্‌ঠ উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ বাংলা সাহিত্যে চলিত রীতির প্রবর্তক কে? ক. ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর খ. প্যারীচাঁদ মিত্র গ. প্রমথ চৌধুরী ঘ. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ ‘মোগো’ আঞ্চলিক রূপের শিষ্ট গদ্যরূপ- ক. আমাদিগের খ. মোদের গ. আমরা ঘ. আমাদের উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ যে রীতিতে ‘স্নান’ শব্দটি ‘সিনান’ (স্নান>সিনান) শব্দে পরিণত হয় তার নাম- ক. অভিকর্ষ খ. বিপ্রকর্ষ গ. স্বরাগম ঘ. অভিশ্রুতি উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ ইলেক বা লোপচিহ্ন-এর ক্ষেত্রে বিরতিকালের পরিমাণ কোনটি হবে? ক. এক সেকেন্ড খ. থামার প্রয়োজন নেই গ. এক উচ্চারণে যে সময় লাগে ঘ. এক বলার দ্বিগুণ সময় উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ বাড়ি বা রাস্তার নামের পরে কোন যতি চিহ্ন বসে? ক. দাঁড়ি খ. কোলন গ. কমা ঘ. ড্যাস উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ ভাষার কোন রীতি কেবলমাত্র লেখ্যরূপে ব্যবহৃত হয়? ক. কথ্য রীতি খ. চলিত রীতি গ. আঞ্চলিক রীত ঘ. সাধু রীতি উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ 'পানি' শব্দটি কোন ভাষা থেকে আগত? ক. আরবি খ. সংস্কৃত গ. হিন্দি ঘ. উর্দু উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ ভাষার মৌলিক অংশ কয়টি? ক. ৬ টি খ. ৪ টি গ. ৩ টি ঘ. ২ টি উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ 'বাবা' শব্দের উৎস ভাষা-- ক. পর্তুগিজ খ. তুর্কি গ. আরবি ঘ. ফারসি উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ কোন ভাষা থেকে বাংলা ভাষার জন্ম হয়েছে? ক. ভারতীয় আর্য খ. সংস্কৃত গ. ইন্দো-ইউরোপীয় ঘ. বঙ্গ-কামরূপী উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ ‘পাউরুটি’ কোন ভাষার শব্দ? ক. পর্তুগীজ খ. ওলন্দাজ গ. হিন্দি ঘ. ফারসি উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ 'নামাজ' শব্দটি কোন ভাষা থেকে এসেছে? ক. পর্তুগিজ খ. ফার্সি গ. ওলন্দাজ ঘ. চৈনিক ঙ. গ্রিক উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ 'কেলিনু' শব্দটির শিষ্ট চলিত রূপ-- ক. কেলি খ. খেললাম গ. খেলিলাম ঘ. কেললাম উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ কোন ছেদ চিহ্নে থামার প্রয়োজন আছে? ক. ইলেক খ. কমা চিহ্ন গ. বিস্ময় চিহ্ন ঘ. উদ্ধরণ চিহ্ন উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ ভাষার রূপ কয়টি? ক. ৪ টি খ. ৩ টি গ. ২ টি ঘ. ১ টি উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ কোনটি সাধুরীতির শব্দ? ক. আজ খ. মিনতি গ. জল ঘ. জোসনা উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ শব্দ ও ধাতুর মূলকে বলে- ক. বিভক্তি খ. ধাতু গ. প্রকৃতি ঘ. কারক উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ অর্থগত দিক থেকে বাংলা শব্দ কে কয়ভাগে ভাগ করা যায়? ক. পাঁচ ভাগে খ. চার ভাগে গ. তিন ভাগে ঘ. দুই ভাগে উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ বাংলা ভাষার বয়স কত? ক. ১০০০ বছর খ. ২০০০ বছর গ. ২৫০০ বছর ঘ. ২৭০০ বছর উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ ‘বাবুর্চি’ কোন ভাষার শব্দ? ক. আরবি খ. ফারসি গ. তুর্কি ঘ. উর্দু উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ জাতীয় সংসদে বাংলা ভাষাকে জীবনের সর্বস্তরে ব্যবহারের জন্য আইন পাস হয়েছে কোন সালে? ক. ১৯৯২ খ. ১৯৯৪ গ. ১৯৮৭ ঘ. ১৯৮৫ উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ ‘চকলেট’ কোন দেশের ভাষার শব্দ? ক. অস্ট্রেলিয়ান খ. ইংরেজি গ. জার্মান ঘ. মেক্সিকান উত্তরঃ ঘ
প্রশ্নঃ ‘আদালত’ কোন ভাষার শব্দ? ক. হিন্দি খ. ওলন্দাজ গ. আরবি ঘ. উর্দু উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ সাধুরীতিতে কোন পদটির দীর্ঘরূপ হয় না? ক. বিশেষ্য খ. সর্বনাম গ. অব্যয় ঘ. ক্রিয়া উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ সাধু ও চলিত রীতিতে অভিন্নরূপে ব্যবহৃত হয়? ক. অব্যয় খ. সম্বোধন গ. সর্বনাম ঘ. ক্রিয়া উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ ‘বেটাইম’ শব্দটি গঠিত হয়েছে--- ক. ফারসি ও ইংরেজি শব্দে খ. ফরাসি ও ইংরেজি শব্দে গ. ফারসি ও ফরাসি শব্দে ঘ. ফারসি ও হিন্দি শব্দে উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ বাংলা কথ্য ভাষার আদি গ্রন্থ কোনটি? ক. প্রভু যিশুর বাণী খ. কৃপার শাস্ত্রের অর্থভেদ গ. মিশনারি জীবন ঘ. ফুলমণি ও করুণার বিবরণ উত্তরঃ খ
প্রশ্নঃ মৌলিক শব্দ কোনটি? ক. গোলাপ খ. শীতল গ. নেয়ে ঘ. গৌরব উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ কোনটি দেশী শব্দ - ক. গিন্নি খ. কৃপণ গ. টোপর ঘ. মাথা উত্তরঃ গ
প্রশ্নঃ কোনটি সাধু ভাষার বৈশিষ্ট্য ? ক. গুরুগম্ভীর খ. গুরুচণ্ডালী গ. অবোধ্য ঘ. দুর্বোধ্য উত্তরঃ ক
প্রশ্নঃ সাধুভাষা পরিভাষাটি প্রথম ব্যবহার করেন- ক. রাজা মনি মোহন রায় খ. রাজা রামমোহন রায় গ. ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর ঘ. অক্ষয় কুমার দত্ত উত্তরঃ খ
---------------------------------------------------
#পার্ট :০২
*অর্থগত ভাবে শব্দসমূহকে ৩ ভাগে ভাগ করা যায়
*যৌগিক শব্দ
*রূঢ়/রূঢ়ি শব্দ
*যৌগরূঢ় শব্দ
১) যৌগিক শব্দ
*গায়ক
*কর্তব্য
*বাবুয়ানা
*মধুর
*দৌহিত্র
*চিকামারা
২)রুঢ়ি শব্দ
*বাঁশি
*তৈল
*প্রবীণ
*সন্দেশ
৩)যৌগরূঢ় শব্দ
*পঙ্কজ
*রাজপুত
*মহাযাত্রা
*জলধি
♦মিশ্র শব্দ♦ইহা কত গুরুত্বপূর্ণ তা ভাষায় ব্যক্ত করা যাইবে না।
১)রাজা+ বাদশা(তৎসম+ফারসি)
২)হাট+ বাজার(বাংলা+ফারসি)
৩)হেড+মৌলভি(ইংরেজি+ফারসি)
৪)হেড+পণ্ডিত (ইংরেজি+তৎসম)
৫)খ্রিষ্টাব্দ(ইংরেজি+তৎসম)
৬)ডাক্তার+ খানা(ইংরেজি+ফারসি)
৭)পকেট +মার(ইংরেজি+ বাংলা)
৮)চৌ+ হদ্দি(ফারসি+আরবি) ♦বিপরীত শব্দ
১)স্থাবর- অস্থাবর /জঙ্গম(যে কোন পরীক্ষাতে আসবেই)
২)সুশীল- দঃশীল(এটা কেন আসবে এমন প্রশ্ন করতেই পারেন হুম ভাই ওই ঃ এর কারনে একটু গুরুত্বপূর্ণ)
৩)রোগ- নীরোগ
৪)সাকার- নিরাকার
৫)খাতক - মহাজন(খুবই গুরুত্বপূর্ণ আসতে পারে যে কোন পরীক্ষাতে)
৬) গৃহী - সন্ন্যাসী
৭)চোঁখা - ভোতা
৮)জড়- চেতন
------------------------------------------------------
#পার্ট:০৩
★কয়েকটি চাপ্টারের অতি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নোত্তর
১) বিভক্তিহীন নাম শব্দকে প্রতিপাদিক বলে
২) বিহার অর্থ ভ্রমণ
৩)ঐ, ঔ - এ দুটি দ্বিস্বর / যৌগিকস্বর ধ্বনির চিহ্ন
৪)স্বরবর্ণেরর সংক্ষিপ্ত রুপকে = কার বলে
৫) কোন বর্নের সংক্ষিপ্ত রুপ নেই= অ বর্ণের
৬)ব্যঞ্জনবর্ণেরর রুপকে কি বলে= ফলা বলে
৭)ক থেকে ম পর্যন্ত পঁচিশটি ধ্বনিকে কি বলে= স্পর্শধ্বনি বলে
৮) plosive মানে স্পর্শধ্বনি
----------------------
★ধ্বনিতত্ত্ব বিষয়ক
১)ধ্বনি উচ্চারনের জন্য যে প্রতঙ্গ গুলো ব্যবহার হয়
* মূর্ধা
*গহবর
*পল্লব
*স্বরতন্ত্রী
*অধর
২)পরাশ্রয়ী বর্ণ কয়টি= ৩টি যথা ং ঃঁ
৩)যৌগিক স্বরের অপর নাম কি= দ্বি স্বর
৪)যৌগিক স্বরজ্ঞাপক বর্ণ কয়টি= ২টি ঐ ঔ
৫)উষ্মধ্বনি বা শিশ ধ্বনি কয়টি= ৪টি শ ষ স হ
৬) আ কে বিবৃতধ্বনিও বলা হয়
৭)Monosyllabic = একাক্ষর
৮)অন্তঃস্থ ধ্বনি = য র ল ব
৯) ং এর উচ্চারন ঙ এর মত
১০) ligature = সংযুক্ত বর্ণ
১১) বাংলা ভাষায় সংযুক্ত বর্ণ ৩ ভাবে গঠিত হয়
* কারের সহয়োগে
* ফলার সহয়োগে
* ব্যজ্ঞন এর সাথে ব্যজ্ঞনের সহযোগে
কিছু উদাহরণ যা বার বার আসে :
১) জ + ঞ = জ্ঞ
২) ঞ + চ= ঞ্চ
৩)ঞ+ছ= ঞ্ছ
৪) ঞ+জ= ঞ্জ
৫)ঞ+ঝ = ঞ্ঝ
৬) হ +ম = হ্ম
★ণ-ত্ব বিধান ও ষ ত্ব বিধান:
কতগুলো শব্দ স্বভাবতই ণ হয়
(খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে কোন পরীক্ষারর জন্য বিশেষ করে বি সি এস এবং বিভিন্ন ব্যাংকের জন্য)
চণক্য মাণিক্য গণ, বাণিজ্য লবণ মণ
বেণু বিণা কঙ্কণ কণিকা
কল্যাণ শোণিত মণি, স্থাণু গুণ পূণ্য বেণী
ফণী অণু বিপণি গণিকা
অাপণ লাবণ্য বাণী, নিপুণ ভণিতা পাণি
গৌণ কোণ ভাণ পণ শাণ
চিক্কণ নিক্কণ তৃণ, কফণি(কনুই) বণিক গুণ
গণনা পিণাক পণ্য বাণ
★স্বভাবতই ষ হয়
ষড়ঝতু রোষ কোষ অাষাঢ় ভাষন ভাষা ঊষা
পৌষ কলুষ পাষাণ মানুষ ঔষধ ষড়যন্ত্র ভূষণ
দ্বেষ
(বই থেকে নিয়মগুলি পড়ে নিবেন অবশ্যই। বুঝে বুঝে পড়লেই মনে থাকবে।)
--------------------------------------------------------★সন্ধি★
সন্ধির যে প্রশ্নোত্তর গুলো আসতে আসতে ক্লান্ত হয়ে গেছে।।
১) প্রতি + ঊষ = প্রত্যূষ( উ দিতে পারে তখন কসফিউসনে পড়ে যাবেন)
২)মসী + অাধার= মস্যাধার(মসীতে কনফিউশন ফেলে দিতে পারে)
৩)মরু+উদ্যান= মরূদ্যান
৪)বহু+ঊর্দ্ধ= বহূর্দ্ধ
৫)তনু + ঈ= তন্বী
৬)কতগুলো সন্ধি কোন নিয়ম অনুসার হয়না
এগুলোকে নিপাতনে সিদ্ধ বলে
কুলটা,গবাক্ষ, প্রৌঢ়, অন্যান্য, মার্তণ্ড, শুদ্ধোদন।
৭)যাচ + না= যাচঞা
৮)রাজ + নী=রাজ্ঞী
৯)যজ+ ন=যজ্ঞ
১০)ষষ+থ= ষষ্ঠ
১১)পরি + কার= পরিষ্কার(খুবই গুরুত্বপূর্ণ)
১২)মনস+ ঈষা= মনীষা(গুরুত্বপূর্ণ)
১৩) অাশীঃ + র্বাদ= অাশীর্বাদ
১৪)নিঃ+রব= নীরব
১৫)নিঃ + রস= নীরস
১৬)অহঃ + নিশা= অহর্নিশ
১৭ নিপাতনে সিদ্ধ সন্ধি
ক)অা + চর্য= অাশ্চর্য
খ) বৃহৎ+ পতি= বৃহস্পতি
গ)মনস+ঈষা= মনীষা
ঘ)পতৎ+ অঞ্জলি=পতঞ্জলি
ঙ)গো +পদ= গোষ্পদ
চ) তৎ+ কর= তস্কর
ছ)ষট+দশ=ষোড়শ
জ)বন+পতি=বনস্পতি
ঝ)পর+পর= পরস্পর
ঞ) এক+দশ= একাদশ
--------------------
★পুরুষ ও স্ত্রীবাচক শব্দ:
১)নিত্য স্ত্রী বাচক শব্দ
সতীন, সৎমা, এয়ো, দাই, সধবা(খুবই গুরুত্বপূর্ণ মুখস্থ করে ফেলতে হবে)
২)শুক - সারী(খুবই গুরুত্বপূর্ণ বানানটা ভালো করে পড়ে যাবেন)
৩)ক্ষুদ্রার্থে ইকা যোগে
নাটক-নাটিকা, মালা-মালিকা, গীত-গীতিকা, পুস্তক-পুস্তিকা
৪)নিত্য স্ত্রী বাচক তৎসম শব্দ
সতীন, অর্ধাঙ্গিনী, কুলটা, বিধবা, অসূর্যস্পশ্য, অরক্ষণীয়, সপত্নী (টানা মুখস্থ রাখতে হবে)
৫) কতগুলো শব্দ পুরুষ ও স্ত্রী উভয়ই বুঝায়
জন,পাখি,শিশু,সন্তান,শিক্ষিত,গুরু
৬)শুধুমাএ পুরুষবাচক বোঝায়
কবিরাজ, ঢাকী,কৃতদার,অকৃতদার
৭) স্ত্রী বাচকতা বোঝায়
সতীন,সৎমা সধবা
নোট: এই অধ্যায় থেকে প্রশ্ন অাসলে এর বাইরে খুবই কম অাসবে।
----------------------------------
#পার্ট:০৪ (এক কথায় প্রকাশ)
রাজহাঁসের ডাক=ক্রেঙ্কার
অশ্বের ডাক=হ্রেষা
গম্ভীর ধ্বনি=মন্দ্র
ময়ূরের ডাক =কেকা
সিংহের নাদ =হুঙ্কার
সেতারের ঝংকার =কিঙ্কিনি
বাদ্যযন্ত্রের ধ্বনি =ঝংকার
ধনুকের ধ্বনি =টংকার
.
ক্ষমা করার ইচ্ছা=চিক্ষমিষা
ত্রাণ লাভ করার ইচ্ছা=তিতীর্ষা
গমন করার ইচ্ছা=জিগমিষা
নিন্দা করার ইচ্ছা=জুগুপ্সা
বেঁচে থাকার ইচ্ছা=জিজীবিষা
পেতে ইচ্ছা=ঈপ্সা
হনন করার ইচ্ছা =জিঘাংসা
অনুসন্ধান করার ইচ্ছা =অনুসন্ধিৎসা
অনুকরণ করার ইচ্ছা =অনুচির্কীষা
অপকার করার ইচ্ছা =অপচির্কীষা
উপকার করার ইচ্ছা =উপচির্কীষা
প্রতিকার করার ইচ্ছা =প্রতিচিকীষা
করার ইচ্ছা =চির্কীষা
বাস করার ইচ্ছা =বিবৎসা

গম্ভীর ধ্বনি=মন্দ্র
মুক্তি পেতে ইচ্ছা=মুমুক্ষা
বিজয় লাভের ইচ্ছা=বিজিগীষা
প্রবেশ করার ইচ্ছা=বিবক্ষা
বাস করার ইচ্ছা=বিবৎসা
বমন করিবার ইচ্ছা=বিবমিষা
রমণ বা সঙ্গমের ইচ্ছা=রিরংসা
আমার তুল্য=সাদৃশ
ইহার তুল্য=ইদৃশ
জয় করার ইচ্ছা =জিগীষা
দেখবার ইচ্ছা =দিদৃক্ষা
.
দেবতার তুল্য=দেবোপম
রন্ধনের যোগ্য=পাচ্য
জানিবার যোগ্য=জ্ঞাতব্য
প্রশংসার যোগ্য=প্রশংসার্হ
ঘ্রাণের যোগ্য=ঘ্রেয়
যাহা সহজে লঙ্ঘন করা যায় না=দুলঙ্ঘ্য
যাহা সহজে উত্তীর্ণ হওয়া যায় না=দুস্তর
যা বলা হয়েছে=বক্ষ্যমাণ
যা পূর্বে চিন্তা করা যায়নি=অচিন্তিতপূর্ব
যা পূর্বে শোনা যায় নি=অশ্রুতপূর্ব
যা বলা হবে =বক্তব্য
যা বলা হচ্ছে =বক্ষ্যমাণ
যা কথায় বর্ণনা করা যায় না =অবর্ণনীয়
যা বাক্যে প্রকাশ করা যায় না =অনির্বচনীয়
.
বাতাসে চরে যে=কপোত
পূর্ব জন্মের কথা স্মরণ আছে
যার=জাতিস্বর
সরোবরে জন্মায় যাহা=সরোজ
.
যা পুনঃ পুনঃ জ্বলিতেছে =জাজ্বল্যমান
সকলের জন্য প্রযোজ্য=সর্বজনীন
সকলের জন্য অনুষ্ঠিত =সার্বজনীন
প্রায় প্রভাত হয়েছে এমন=প্রভাতকল্পা
রাত্রির মধ্যভাগ=মহানিশা
স্মৃতিশাস্ত্রে পণ্ডিত যিনি=শাস্ত্রজ্ঞ
স্মৃতি শাস্ত্র রচনা করেন
যিনি=শাস্ত্রকার
যিনি স্মৃতি শাস্ত্র জানেন=স্মার্ত
শক্তির উপাসনা করে যে = শাক্ত
এখনও শত্রু জন্মায় নাই যার=অজাতশত্রু
এখনও গোঁফ-দাড়ি গজায় নাই
যাহার=অজাতশ্মশ্রু
যে ব্যক্তি এক ঘর হতে অন্য ঘরে ভিক্ষা করে বেড়ায়=মাধুকর
অন্যদিকে মন নাই যার=অনন্যমনা
খেয়া পার করে যে =পাটনী
নিজেকে বড় ভাবে যে=হামবড়া
নিজেকে যে নিজেই সৃষ্টি করেছে=সয়ম্ভূ
নিতান্ত দগ্ধ হয় যে সময়ে
(গ্রীষ্মকাল)=নিদাঘ
যা গতিশীল = জঙ্গম
যে বিষয়ে কোন বিতর্ক নেই=অবিসংবাদী
স্ত্রীর বশীভূত =স্ত্রৈণ
অঙ্গীকৃত মাল তৈরির জন্য প্রদত্ত
অগ্রিম অর্থ=দাদন
অতি উচ্চ ধ্বনি =মহানাদ
অতিশয় রমণীয়=সুরম্য
.
অগ্র-পশ্চাৎ ক্রম অনুযায়ী =আনুপূর্বিক
অবজ্ঞায় নাক উঁচু করে যে=উন্নাসিক
অসির শব্দ=ঝঞ্জনা
অন্ধকার রাত্রি =তামসী
অশ্বের চালক=সাদী
.
ঈষৎ উষ্ণ =কবোষ্ণ
ঈষৎ পাংশু বর্ণ=কয়রা
আকস্মিক দুর্দৈব =উপদ্রব
.
আজীবন সধবা যে নারী=চিরায়ুষ্মতী
উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া ধন=রিকথ
উটের/হস্তীর শাবক=করভ
ঋষির দ্বারা উক্ত(কথিত) =আর্য
ঋজুর ভাব=আর্জব
ঋতুর সম্বন্ধে=আর্তব
ঔষধের আনুষঙ্গিক সেব্য=অনুপান
কালো হলুদের মিশানো রঙ=কপিশ,কপিল
ক্ষুধার অল্পতা=অগ্নিমান্দ্য
.
কৃষ্ণবর্ণ হরিণ=কালসার
কাচের তৈরি ঘর=শিশমহল
কোন বিষয়ে যে শ্রদ্ধা হারিয়েছে=
বীতশ্রদ্ধ
কপালে আঁকা তিলক=রসকলি
কচি তৃণাবৃত ভূমি=শাদ্বল
গৃহের প্রধান প্রবেশ পথ=দেহলি,দেউড়ি
গরম জল=উষ্ণোদক
গর্দভের বাসস্থান =খরশাল
গুরুগৃহে বাস=অন্তেবাসী
.
৯৮.গুরুর পত্নী =গুর্বী
গাধার ডাক=রাসভ
ঘর্ষণ বা পেষণজাত গন্ধ=পরিমল
চোখের কোণ=অপাঙ্গ
জানায় যে=জ্ঞাপক
ছিন্ন বস্ত্র=চীর
জজের বৃত্তি=জজিয়াতী
জলবহুল স্থান =অনুপ,জলা
জানা উচিত =জ্ঞেয়
ত্বরার সঙ্গে বর্তমান=সত্বর
ত্বরায় গমন করে যে=তুরগ
তৃণাদির গুচ্ছ=স্তন্ব
তরল অথচ গাঢ়=সান্দ্র
তোপের ধ্বনি=গুড়ুম
তোমার মত=ত্বাদৃশ
তার মত=তাদৃশ
থেমে থেমে চলার যে ভঙ্গি=ঠমক
.
দেবতা থেকে উৎপন্ন বা
দৈবজাত=আধিদৈবিক
দুরথীর যুদ্ধ =দ্বৈরথ
দুই নদীর মধ্যবর্তী স্থান =দোয়াব
দৈনন্দিন জীবনের লিখিত বিবরণ
=রোজনামচা
দুগ্ধবতী গাভী=পয়স্বিনী
.
নিবেদন করা হয় যা=নৈবদ্য
নির্ভুল মুনিবাক্য=আপ্তবাক্য
নিকৃষ্ট ব্যক্তি =অজন
নিচে জল আছে যার=অন্তঃসলিলা
প্রস্থান করতে উদ্যত =চলিষ্ণু
প্রদীপ শীর্ষের কালি=অঞ্জন
পেতে ইচ্ছা=ঈপ্সা
প্রতিবিধান করার ইচ্ছা=প্রতিবিধিৎসা
পাখির ডানা ঝাপটা =পাখসাট
পায়ে হেঁটে যে গমন করে না=পন্নগ
পায়ে হাঁটা =পদব্রজ
ফিকা কমলা রঙ=বাসন্তী
পূর্ণিমার চাঁদ =রাকা
প্রভাতের নবোদিত
সূর্য=বালার্ক
বসন আলগা যার=অসংবৃত
বীজ বপনের উপযুক্ত সময়=জো
বেলা ভূমিকে অতিক্রম =উদ্বেল
বিশেষ ভাবে দর্শন =বীক্ষণ
মেঘের ধ্বনি=জীমূতমন্ত্র
মাথায় টাক=খলতি
যার কিছু নেই=আকিঞ্চন
.
যার দিক থেকে চক্ষু ফেরানো যায়
না=অসেচনক
বলা হতে যাচ্ছে বা হবে=বক্ষ্যমাণ
যাহা উচ্চারণ করিতে কষ্ট হয়=দুরুচ্চার্য
যে স্ত্রীর বশীভূত =স্ত্রৈণ
যা শুনলে দুঃখ দূর হয়=দুঃশ্রব
যা গমন করে না=নগ
যার স্পৃহা দূর হয়েছে=বীতস্পৃহ
লয় প্রাপ্ত হয়েছে=লীন
শত্রুকে পীড়া দেয় যে=পরন্তপ
শক্তির উপাসনা করে যে=শাক্ত
সুদে টাকা খাটানো=তেজারতি
হস্তী রাখার স্থান =বারী,পিলখানা
হস্তীর চারণভূমি=প্রচার
হত্যা করে যে=হন্তারক
অব্যক্ত মধুর ধ্বনি=কলতান
যার বাসস্থান নেই=অনিকেতন
কর্মে অতিশয় তৎপর =করিৎকর্মা
জয়লাভ করতে অভ্যস্ত যে=জিষ্ণু
জয় করার যোগ্য=জেতব্য
তম দূর করে যে=তমোনাশ
দান করে যে কেড়ে নেয়=দত্তাপহারী
দান করার ইচ্ছা=দিৎসা
ন্যায় শাস্ত্রে পণ্ডিত যিনি=নৈয়ায়িক
যে সুপথ থেকে ভিন্ন পথে
গেছে=উন্মার্গগামী
যে পার হতে ইচ্ছুক=তিতীর্যু
যে অট্টালিকা দেখতে সুন্দর=হর্ম্য
যে নদীর জল পূণ্যদায়ক=পূণ্যতোয়া
.
যা বিচারের দ্বারা ঠিক করা যায়
না=অপ্রতর্ক্য
যা মিলিয়ে যাচ্ছে=অপমৃয়মান
শুনতে ইচ্ছুক=শুশ্রুষু
রঘুর পুত্র=রাঘব
হাতির পিঠে আরোহী বসার স্থান
=হাওদা
যা সহজে অপনীত হবার নয়=দুরপনেয়
সন্তানের মত যত্নে=অপত্যনির্বিশেষে
যে রমণীর হাসি পবিত্র=শুচিস্মিতা
.
যা কষ্টে নিবারণ করা যায় =দুর্নিবার
প্রায় প্রভাত হয়েছে এমন =প্রভাতকল্পা
রাত্রির প্রথম ভাগ =পূর্বরাত্র
রাত্রির মধ্যভাগ =মহানিশা
রাত্রির তিন ভাগ একত্রে =ত্রিযামা
রাত্রিকালীন যুদ্ধ =সৌপ্তিক
পরের অন্নে যে জীবন ধারণ করে =পরান্নজীবী
পরকে প্রতিপালন করে যে =পরভৃৎ
শোনা যায় এমন =শ্রুতিগ্রাহ্য
.
যে নারীর স্বামী ও পুত্র জীবিত =বীরা,পুরন্ধ্রী
যে নারীর সম্প্রতি বিয়ে হয়েছে =নবোঢ়া
যে নারী অন্য কারও প্রতি আসক্ত হয় না
=অনন্য
যে নারীর সতীন/শত্রু নেই =নিঃসপ্ত
সর্বদা ইতস্তত ঘুরিয়া বেড়াইতেছে =সততসঞ্চরমান
যা বার বার দুলছে =দোদুল্যমান
পুনঃ পুনঃ দীপ্তি পাচ্ছে যা =দেদীপ্যমান
যা বপন করা হয়েছে =উপ্ত
.
যার আগমনের কোনো তিথি নেই =অতিথি
সম্পূর্ণরূপে বিবেচনা করা হয় নাই এমন
=অসমীক্ষিত
.
কামনা দূর হয়েছে যার =বিতস্কাম
পিতার ভ্রাতা =পিতৃব্য
যে মেঘে প্রচুর বৃষ্টি হয় =সংবর্ত
অন্ন গ্রহণ করিয়া যে প্রাণধারণ করে
=অন্নগতপ্রাণ
মোটাও না,রোগাও না =দোহারা
ঈষৎ কম্পিত =আধত
.
ঈষৎ পাংশুবর্ণ =কয়রা
কষ্টে অতিক্রম করা যায় না যা =দুরতিক্রম্য
যা সহজে অতিক্রম করা যায় না =দুরতিক্রম্য
যা কষ্টে নিবারণ করা যায় =দুর্নিবার
অক্ষির সমীপে =সমক্ষ
বেঁচে থাকার ইচ্ছা =জিজীবিষা
যা ক্ষমার অযোগ্য =ক্ষমার্য
রচয়িতার মূল গ্রন্হ হতে যারা প্রাচীন পাণ্ডুলিপি লিপিবদ্ধ করেন =লিপিকার
গোপন করার ইচ্ছা =জুগুপ্সা
.
যা কষ্টে জয় করা যায় =দুর্জয়
যাহা কষ্টে অর্জন করা যায় =কষ্টার্জিত
যা কষ্টে লাভ করা যায় =দুর্লভ
যা দমন করা কষ্টকর =দুর্দমনীয়
যা সহ্য করা যায় না =দুর্বিষহ
যা সহজে মরে না =দুর্মর
যা সহজে দমন করা যায় না =দুর্দম
যা জয় করা যায় না =অজয়
যা অতিক্রম করা যায় না =অনতিক্রম্য
যাহাতে গমন করা যায় না =অগম্য
যা দমন করা যায় না =অদম্য
যা নিবারন করা যায় না =অনিবারিত
.
জন্মে নাই যা =অজ
যাহাতে সহজে গমন করা যায় না =দুর্গম
কোনো ভাবেই যা নিবারণ করা যায় না
=অনিবার্য।
(এ নোট এক কথায় প্রকাশের জন্য স্বয়ংসম্পূর্ণ)
************************************
উল্লেখ্য ধাপ ২ এ যা থাকবে: বাগধারা, সমাস সহ কয়েকটি টপিক।।
বিশেষ কথা: এটি প্রিপারেশন সম্পূর্ণ করতে এটি ৫০% সহযোগিতা করবে। বাকিটা বই নিয়ে এনালাইস করে পড়ে পূর্ণ করুন। কোন উত্তরে কোন প্রবলেম মনে করলে জানাবেন, সমাধান দেবার চেষ্টা করব। ব্যাকরণের যেকোনো টপিক পড়তে গিয়ে প্রবলেম হলেও জানাতে পারেন। আপনি যা বুঝাবেন তা আপনি ভুলবেন অনেক দেরিতে, ইহা নিতান্তই সত্য।।অন্যকে নিজের বিষয়গুলো বুঝান, এতে আপনারই লাভ।।
-------------------
প্রিপারেশনের দৌড়ে যারা অনেক এগিয়ে গেছেন তাদের কাছে অনেক কিছুই মামুলি ব্যাপার। আমরা সামান্য। #যাদের ভাল লাগবে না অনুগ্রহপূর্বক এরিয়ে যাবেন।

******************
ইতি, দীনেশ দ্বিপ- Bcs Preliminary Campaigner

আবেদনের শেষ তারিখঃ na

লোকেশনঃ বাংলাদেশ

Source: online