খ্যাতিমান ভাস্কর মৃণাল হকের জন্ম, মৃত্যু, উল্লেখযোগ্য ভাস্কর্য, শিক্ষা ও কর্মজীবন

খ্যাতিমান ভাস্কর মৃণাল হকের পরিচিতি

Total Views: 201

সব ধরনের  চাকরির  প্রস্তুতি ও অনলাইনে পরীক্ষার মাধ্যমে আপনার মেধা যাচাই করার জন্যে আছে বিগত বছরের (bcs|bank|gov.job|MBA|NTRC|PSC|Primary) এর ১০০০+ পরীক্ষার প্রশ্ন ও উত্তর। 
ভিজিট করুন
লিঙ্ক:  http://bdalljob.com/test-center

 

খ্যাতিমান ভাস্কর মৃণাল হকের শিক্ষা ও কর্মজীবন

শিক্ষা ও কর্মজীবন
মৃণাল হক ১৯৭৭ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইন্সটিটিউটে ভর্তি হন। ১৯৮৪ সালে তিনি মাস্টার্স সম্পন্ন করেন।
১৯৯৫ সালে তিনি আমেরিকাতে পাড়ি জমান এবং সেখানে তার প্রথম কাজ শুরু করেন। নিউ ইয়র্ক সিটিতে অবস্থিত বাংলাদেশের দুতাবাসে তার প্রথম প্রদর্শনী হয়।
২০০২ সালে মৃণাল দেশে ফিরে আসেন এবং স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। একই বছর তিনি নিজ উদ্যোগে নির্মাণ করেন মতিঝিলের বক ভাস্কর্যটি। ২০০৩ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে নির্মিত গোল্ডেন জুবিলী টাওয়ার তারই শিল্পকর্ম।
রাজধানীসহ সারা দেশে তাঁর অসংখ্য ভাস্কর্য রয়েছে। দুর্জয় -রাজারবাগ পুলিশ লাইন তাঁর আরেকটি উল্লেখযোগ্য ভাস্কর্য। এছাড়া বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সামনে গ্রিক দেবী থেমিসের অনুকরণে নির্মিত ভাস্কর্যটি তাঁর ছিল।রাজসিক ও কোতোয়ালও উল্লেখযোগ্য ভাস্কর্য।

জন্ম: ৯ সেপ্টেম্বর ১৯৫৮ (রাজশাহী)
➡পরিচিত: দেশের বরেণ্য ভাস্কর
➡শিল্পকর্ম: মতিঝিলের ‘বলাকা’ ভাস্কর্যটি। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে নির্মিত 'গোল্ডেন জুবিলি টাওয়ার', রাজারবাগ পুলিশ লাইনে 'দুর্জয়', প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে ‘রত্নদ্বীপ’, হোটেল শেরাটনের সামনে ‘রাজসিক’, পরীবাগ মোড়ে ‘জননী ও গর্বিত বর্ণমালা’, ইস্কাটনে ‘কোতোয়াল’, সাতরাস্তায় ‘ময়ূর’, মতিঝিলের ‘বক’, এয়ারপোর্ট গোল চত্বরের ভাস্কর্য, নৌ সদর দপ্তরের সামনে ‘অতলান্তিকে বসতি’, সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ের ভাস্কর্য, বঙ্গবাজারে মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্যসহ বিভিন্ন ভাস্কর্যের
➡মৃত্যু: ২২ আগস্ট ২০২০

আবেদনের শেষ তারিখঃ na

লোকেশনঃ বাংলাদেশ

Source: online